অপ্রিয়- সিরিজ

অপ্রিয় জানো এখনো তোমার অপ্রেক্ষায় রয়ে গেছে
অযত্নে ফেলে রাখা একটা গোছানো সংসার
দু’হাতের ছোঁয়াতে সাজানো আসবাব,
আজো ড্রেসিং টেবিলের উপরে পড়ে আছে
খুব সস্তার ধুলো জমা টিপের পাতায় অবশিষ্ট
তিনটে টিপ, বড্ড অবহেলার সেফটিপিন কিংবা
আঁচলের স্পর্শের অভাবে একগোছা চাবির রিং।

অথচ তোমার মনে জমে আছে বড্ড অভিমান
আমি হয়েছি প্রাক্তন,বিষাদে ছেয়ে গ্যাছে মন
এখন কপালের জ্বরে ভিজে যায় দীর্ঘশ্বাসেরা
বজ্রপাতের আঘাতে ভেঙ্গে যায় বিশ্বাসেরা
কাগজের নৌকায় ভেসে কৌতুহলময় এ জীবন
নীরাবতার শহরে কেমন মুখ থুবরে পড়ে রয় !

বিবাদের রেসারেসিতে জড়িয়ে বেড়ে গেছে দুরত্ব
ভালবাসা এখন প্রতিবেশীর বিদ্রুপ চোখের মত
যেন তুমি ছিলে কোন ক্ষণস্থায়ী সুখের ক্ষত
চলে যেতেই আমি হয়ে গেছি ঋণগ্রস্থ।
এদিকে ক্ষুধার্ত শকুনের মত অনাদায়ী দেনার ভারে
অভাবী হৃদয়ে হচ্ছে না কোন সুখের চাষ
শব্দের অভাবে লেখা হচ্ছে না উপন্যাস।

এখন বুকের বা’পাশে মৃতশহরেরা হেটে বেড়ায়
বেহায়া অভাবেরা রোজ তাড়া করে দুবেলায়
ক্লান্ত দু’চোখ যেন মৃত নদীতে ডুবে যায়
কাগজে শব্দেরা শ্রম দিয়ে লিখে যায়
অবহেলারা যেন আমাকে কাঁদায়
ব্যাথার ঢেউয়ে আমি ভেসে যায়
উপকূলের অভাবে মারা যায়!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *