অপ্রিয় সিরিজ ৪

অপ্রিয় জানো বেশ ক’বছর আমার শহরে কোন বর্ষা নেই

নেই কোন বসতি,সব কিছু বিলীন হয়ে গেছে

সবুজ বৃক্ষগুলো মরতে বসেছে

তেপান্তরের মাঠ,খাল-বিল সব শুকিয়ে গেছে

শহরের দেয়ালগুলোয় নোনা ধরেছে

গ্রীষ্মের প্রচন্ড উত্তাপের মত বেড়ে চলেছে একাকীত্ব।

এদিকে বুকের বা পাশে বেশ ক’বছর ধরে শূন্য হয়ে পড়ে থাকা

স্বপ্ন-সুখের কুড়ে ঘরটাও আর নেই

কিছু দিন আগে মিউনিসিপালিটির লোক এসেছিল

বেআইনি ভাবে ঘর তোলার অপরাধে

ক্রেন দিয়ে পিষে দিয়ে গেছে

এখন চাল-চুলোহীন হয়ে আমি ঘুরে বেড়ায়

তোমাদের স্বার্থপর এই দুনিয়াতে।

শুনেছি তুমি এখন বেশ বাস্তববাদী হয়েছো

পুরানো স্মৃতি বা কষ্টগুলো পিষে ফেলতে শিখেছ!

এখন নাকি খুব সকালের তরতাজা শিশিরের ছোঁয়ায়

চায়ের চুমুকে গিলে ফেলছো বেওয়ারিশ সময়।

স্নান শেষে তোয়ালের স্পর্শে ঝেড়ে ফেলা চুলের জলের মত

কিংবা খুব ভোরের ঝরে পড়া শিউলির মত

অবলীলায় ঝেড়ে ফেলেছো আমাদের সম্পর্ক!

অথচ এখনও আমার চোখের গভীরতায় বাস করে

খুব সস্তার সমুদ্র,

নোনা জলের বন্যা রুখতে

বুক খুড়ে বেড়িয়ে আসে বিশাল এক স্মৃতির পাহাড়

কেন জানি আমি এখনও বাস্তববাদী হয়ে উঠতে পারি নি

যখনই সব ভুলে গা ভাসাতে চায় নাগরিক ভীরে

কে যেন আমায় পিছু ডাকে খুব মায়া লাগা সুরে।

অপ্রিয় তোমার এই সব যান্ত্রিক শহরের ধূলোমাখা নিয়মে

বিকাল গড়িয়ে সময়েরা ভেসে গেলে আজও

আমার অপেক্ষা চোখে তোমার প্রযত্নে

চেয়ে থাকে আদুরে সন্ধ্যেরা

যদি পারো তাহলে এই মৌসুমে শিখিয়ে দিও

কেমন করে পরিচিত দিনগুলোকে মুছে ফেলতে হয় খুব সহজে

ভুলে যতে হয় কেউ ছিলো অনাগত হৃদয়জুড়ে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *